দুঃসাহসী অভিযান আইস ল্যান্ডের হিমবাহতে! | টেকএলার্মবিডি।সবচেয়ে বড় বাংলা টিউটোরিয়াল এবং ব্লগ
Profile
ইয়াসমিন রাইসা

মোট এলার্ম : 236 টি


আমার এলার্ম পাতা »

» আমার ওয়েবসাইট :

» আমার ফেসবুক :

» আমার টুইটার পাতা :


স্পন্সরড এলার্ম



দুঃসাহসী অভিযান আইস ল্যান্ডের হিমবাহতে!
FavoriteLoadingপ্রিয় যুক্ত করুন
Share Button

অজানার হাতছানি কাকে না টানে! অ্যাডভেঞ্চারের শখ কার না নেই! নিজে না পারলেও বই পড়ে দুধের সাধ ঘোলে মেটানোর চেষ্টা করে অনেকেই৷ আইসল্যান্ডের এক দুর্গম হিমবাহের উপর সম্প্রতি এমনই এক অভিযান চালানো হলো৷

লাংইয়োকুল হিমবাহের কোলে পাহাড়ি অঞ্চল৷ জুন থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত বিশেষ ফোর হুইল ড্রাইভ জিপ নিয়ে সেখানে যাবার অনুমতি পাওয়া যায়৷ তবে পর্যটকদের এক দল শীতকালেই সেখানে যাবার উদ্যোগ নিয়েছে৷ ইউরোপের অন্যতম বিশাল হিমবাহ অতিক্রম করতে চেয়েছিল তারা৷ এই অভিযানে বেশ কয়েকদিন সময় লাগে৷ শুরুতেই সুইস অভিযাত্রী লেওনহার্ড ফপ বলেন, ‘‘আমাদের আশা, পথ শুধু সোজা হবে না৷ উঁচু-নিচু পথ হবে, জলের ধারা পেরোতে হবে৷ একটু অ্যাডভেঞ্চার হবে৷” আরেক অভিযাত্রী উরসুলা ইয়ুংকার বলেন, ‘‘গত ১৫ বছর ধরে নিয়মিত আইসল্যান্ডে আসছি, তবে শীতে কখনো আসিনি৷ পাহাড়ে এমন ভ্রমণ করার ইচ্ছা চিরকালই ছিল৷”

বিশেষ অনুমতি নিয়ে অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমী এই দল অভিজ্ঞ নেতাদের নিয়ে পাহাড়ে অভিযান চালিয়েছে৷ আইসল্যান্ডের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ টিংভেলির জাতীয় পার্কের ভিতর দিয়ে যেতে হয়েছে৷ পথে পড়েছে গুলফস জলপ্রপাত আর বিশাল প্রাকৃতিক ফোয়ারা৷ হিমবাহের পথ মোটেই সহজ নয়৷ কয়েক কিলোমিটার পরই প্রথম সমস্যার মুখে পড়তে হয়৷ বরফের নীচে পানির স্রোত৷ বিশাল টায়ার ও ইঞ্জিন সত্ত্বেও গাড়ি প্রায়ই আটকে যায়৷ প্রথমে দ্রুত, তারপর ধীরে, তারপর আবার দ্রুত চালানোর চেষ্টা বড়ই কঠিন৷ তবে গোটা দলই সাহায্য করেছে৷

অভিযানের নেতা ইয়ন বালদুর টরবিয়র্ন্সসন বলেন, ‘‘আসলে বরফের স্তর খুবই পাতলা, বেশ কঠিনও৷ একবার চাকা বসে গেলে বেরোনো কঠিন৷”দল এগিয়ে যেতে পেরেছে বটে, তবে খুবই ধীর গতিতে৷ সূর্য তাড়াতাড়ি ডুবে যায়৷ অন্ধকারে গাড়ি চালানো কঠিন৷ প্রত্যেকটি গাড়ি কখনো না কখনো আটকে পড়ে৷ যেমন বরফের নীচে পানির স্রোত৷ সবার শক্তি কাজে লাগিয়ে অভিযানের প্রথম দিন সফলভাবে শেষ হয়৷ পরদিন ভোরে আবার পথ চলার শুরু৷ অভিযানের প্রধান দিনের রুট স্থির করেন৷ টরবিয়র্ন্সসন বলেন, ‘‘অ্যাডভেঞ্চার মানে গতকালের অনুশীলন আজকের বাস্তব৷ বরফ কতটা, কত গভীর – তাতে কিছু এসে যায় না৷ আমরা ৫ থেকে ৮ মিটার বরফের উপর চলেছি৷ প্রশ্ন হলো, কী ধরনের বরফ সেটা৷”

বরফে ঢাকা এলাকার উপর দিয়ে সঠিক পথ খোঁজার ক্ষেত্রে অভিযানের নেতার অভিজ্ঞতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ ঘণ্টায় গড়ে ২ থেকে ৫ কিলোমিটার বেগে গোটা দল আইসল্যান্ডের দ্বিতীয় বৃহত্তম হিমবাহের উপর দিয়ে চলেছে৷ উচ্চতার সমস্যারও সম্মুখীন হতে হয় তাদের৷ লাংইয়োকুল হিমবাহ অতিক্রম করতে ১৪ ঘণ্টারও বেশি সময় লাগে৷ অভিযাত্রী ফ্লপ বলেন, ‘‘আমাদের মধ্যে কয়েক জনের বরফের উপর গাড়িতে চলার অভিজ্ঞতা রয়েছে৷ তবুও আমি নতুন কিছু শিখলাম৷” আরেক জন বললেন, কঠিন পরিশ্রম সত্ত্বেও অসাধারণ অভিজ্ঞতা৷ উপকূল ধরে ফেরার পথ অনেক সহজ৷ তবে এখানকার প্রকৃতির রূপও খুবই সুন্দর৷ (688)

Share Button
  

FavoriteLoadingপ্রিয় যুক্ত করুন

এলার্ম বিভাগঃ আকর্ষণীয় স্থান সমূহ

এলার্ম ট্যাগ সমূহঃ > > >

Ads by Techalarm tAds

এলার্মেন্ট করুন

You must be Logged in to post comment.

© টেকএলার্মবিডি।সবচেয়ে বড় বাংলা টিউটোরিয়াল এবং ব্লগ | সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত

জেগে উঠো প্রযুক্তি ডাকছে হাতছানি দিয়ে!!!


Facebook Icon