নতুন উজ্জল নবতারা সিগার ছায়াপথে (এম-৮২) | টেকএলার্মবিডি।সবচেয়ে বড় বাংলা টিউটোরিয়াল এবং ব্লগ
Profile
cracker2007

মোট এলার্ম : 12 টি


আমার এলার্ম পাতা »

» আমার ওয়েবসাইট :

» আমার ফেসবুক :

» আমার টুইটার পাতা :


স্পন্সরড এলার্ম



নতুন উজ্জল নবতারা সিগার ছায়াপথে (এম-৮২)
FavoriteLoadingপ্রিয় যুক্ত করুন
Share Button

মেসিয়ার-১০৬ (এন জি সি-২৫৮) কেনিস ভেনাটিকি মন্ডলের বড় এবং উজ্জলতম পেচানো বাহুর একটি ছায়াপথের নাম।এই ছায়াপথটি Pierre Méchain ১৭৮১ সালে আবিস্কার করেন।এই ছায়াপথটি পৄথিবীথেকে প্রায় ২২-থেকে ২৫ মিলিয়ন আলোকবষ দূরে অবস্থিত।
এটি Seyfert II galaxy এই ছায়াপথটিকে ছোট আকারের দূরবীনের সাহায্য দেখতে পাওয়া যায়।যদি তা ঝাপসা আলোর মতো।ধারনা করা হয় এই ছায়াপথের মধ্য একটি বিরাট আকারের ব্লাক হোল আছে।এবং এর আর সহচর ছায়াপথ রয়েছে।এই ছায়াথটি নবম মাত্রার উজ্জলতা সম্পন্ন একটি ছায়াপথ,একে সিগার বা শিকারী কুকুর ছায়াপথ নামেও ডাকা হয়।

২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে কার্টজম্যান সংয়ক্রিয় দূরবীনের (লিক মানমন্দিরের একটি অংশ) সাহায্যে সুপার নোভা (নব তারা) খোজ করার সময়,তারা এর বেশ কিছু ছবি তোলেন।তখন তারা দেখতে পান,এই ছায়াপথের উজ্জল কেন্দ্রের খুব কাছে,ঝাপসা নতুন ধরনের একটি তারা দেখতে পান।

তখন বিজ্ঞানিরা ধারনা করেন যে,আজ থেকে ২৩,৫ মিলিয়ন বছর আগে এই ছায়াপথের খুব কাছে বিশাল বড় এবং উজ্জল একটি তারা (দানব তারা) বিস্ফোরিত হয়।এটি সেই সুপার নোভা।এর আলোক রশ্নি বিশ্লেষন করে একে টাইপ II সুপারনোভা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।একটি অতিব বিরাট তারা বিনাশ হয় খুব ভয়ংকরভাবে যা কল্পনাতীত।এটি এত বড় যে এই তারাটি আমাদের সূয থেকে প্রায় ৮ থেকে ১২ গুন বেশী ভর সম্পন্ন।
এর কেন্দ্র থেকে প্রতি নিয়ত প্রচন্ড বেগে বিভিন্ন পদার্থ বের হয়ে আসছে,যেমন হাইড্রোজেন,হিলিয়াম ইত্যাদি।এই তারাটির আয়ু ধরা হয়েছে (১০ থেকে ১০০ মিলিয়ন বছর)যা সূযের চেয়ে প্রায় ১১ মিলিয়ন বেশী।
যখন সিলিকন শেষ হয়ে গিয়ে লোহা তৈরী হয় তখন তখন দানব তারা গুলি পৌছে যায়,জীবনের শেষ প্রান্তে।লোহা কখনো নিঃশেষ বা মিশে যায় না।এই পর্যায়ে এসে তারাটি নিজের মাধ্যাকষন টানে নিজের ভিতরে চুপষে যেতে থাকে,এবং কাজটি নিজে নিজেই সম্পন্ন করে,প্রতি সেকেন্ডে ৪৫,০০০ মেইল বেগে।
এর ধাক্কা যখন তারাটির বাইরের অংশে পৌছে,তখন তারাটিতে প্রচন্ড বিস্ফোরন এবং ঠিক তখনই একটি সুপার নোভা (নব তারার)তৈ্রি হয়।এর বাইরের অশং মহাকাশের বিশাল এলাকায় ছরিয়ে পড়ে।এবং এর কেন্দ্রীয় একটি অশংটি প্রচন্ড উজ্জলতা সম্পন্ন হয়।ঠিক এই রকম অবস্থার হয়,তখন এই নব তারাটি পৄথিবীর আকাশে থেকে দেখা যায়।
লুকা মেসি এবং তার দল ২১ শে মে এর ছবি ধারন করে,এই ছবিটি তারা লাল ফিল্টার+13.5 ব্যবহার করে তোলে।ছবি তোলার পরে তারা দেখতে পান,এই নব তারাটির আর কিছু অশং ঝাপসা।আর লাল রংয়ের উজ্জলতা ছিল এর চারিদিকে ছড়ানো,তারা এর কারন হিসাবে অনুমান করেন, এই লালা আলো হলো হাইড্রোজেন গ্যাসের আলো।
এই নব তারার লক্ষন দেখে একে তারা টাইপ-11 নবতারা হিসাবে উল্লেখ্য করে।সাধারনত নবতারাকে খুব অনুজ্জল দেখা যায়,এর কারন আমাদের চোখ খুব সংবেদনশীল।এর কারনে আমারা রংধুর মধ্যখানে সবুজ এবং হলুদ রং যতটা ভালো করে দেখতে পাই,বা উজ্জল বলে মনে হ ইয়,কিন্তু লাল এবং বেগুনি রংকে ততটা দেখতে পাই না।

জ্যোতিবিজ্ঞানি এস.জে ফসে আ্যস্ট্রনমিক্যাল টেলিগ্রাফকে জানায় বর্তমানে সুপারনোভারটি উজ্জলতা +11 থেকে + ১২উজ্জলতা সম্পন্ন এই নবতারাটির নাম দেয়া হয়েছে PSN- j09554214+6940260।এটি একটি অত্যন্ত ঘনত্ত সম্পন্ন তারা।এর আকার প্রায় পৄথিবীর সমান, কিন্তু এর মধ্যাকষন শক্তি সূর্যের ভরের সমান।যখন একটি বামন তারার ভর সূর্যের ভরের 1.4 গুন বেশী হয়,তখন সেই তারাটির আয়ু বেশীদিন থাকে না।
না।তারাটি হঠাৎ সংকুচিত হয়,ফলে এর তাপমাত্রা বেড়ে যায় এবং পারমানবিক প্রক্রিয়াগত কারনে এটি বিস্ফোরিত হয়।এবং আমারা তখন পৄথিবী থেকে ছায়াপথে নতুন একটি নবতারা দেখতে পাই।অবশ্যই এটি নতুন তারা নয় কিন্তু এটি একটি তারার জীবনের শেষ অংশ।
তাই একে খালি চোখে দেখা যায় না।একে দেখার জন্য আপনাকে 3,4, অথবা আকটি 5 ইঞ্ছি দূরবীনের প্রয়োজন হবে।তবে যদি আপানার কাছে শক্তিশালি বাইনোকুলার থাকে তবে একদম অন্ধকার স্থান থেকে একে দেখতে পাবেন।যদি খুব পরিস্কার ভাবে দেখতে পাবেন না,অনেকটা ঝাপসা আলোর মত দেখতে পাবেন।কারন এটি পৄথিবী থেকে 12 (1-light year= 5,878,000,000,000 mile. 9,457,702,000,000 Km. 1 Light Year about 9.46 trillion km) মিলিয়ন আলোকবশ দূরে অবস্থিত।

এর আগে সবচেয় কাছে সর্বশেষ উজ্জল যে নবতারাটি দেখা গিয়েছিল তার নাম ছিল SN- + 1993, 21 বছর আগে।এম-৮১ এবং এম ৮২ পাশাপাশি দুটি ছায়াপথ যা একে অন্যের সহচর হিসাবে গন্য করা হয়।সৌ্খিনিদের কাছে এম-৮২ একটি আর্কষনীয় পর্যবেক্ষনের বস্তু।এর উজ্জলতা অনেক বেশী বলে, সৌ্খিনরা এখানে অনেক কিছু দেখতে পায়,এবং নতুন অনেক কিছু আবিস্কার করে।

এম-৮২ উজ্জল ছায়াপথ এর পেচানো বাহুর প্রান্ত অনেক উজ্জল বিধায় একে শক্তিশালী বাইনোকুলার দিয়েও দেখা সম্ভব।বর্তমানে এটি সিগার বা তারা বিস্ফোরিত ছায়াপথ নামে পরিচিতি পেয়েছে।নতুন নবতারাটি বিস্ফোরিত হয়েছে,ছায়াপথটির একদম কেন্দ্রর কাছে।এর আগে এই ছায়াপথে দুটি নবতারা দেখা গিয়েছিল যা 2004 এবং 2005 এ।

আমি জানি যারা রাতের আকাশ দেখতে ভালোবাসেন তারা অনেক উত্তেজিত,যেমনটা আমি ছিলাম।কিন্তু আকাশে এখন চাঁদ এর আলোতে দেখা সম্ভব নয়।

অপেক্ষা করুন চাঁদ আকাশ থেকে বিদায় নেয়ার সময় হয়েছে।একদম আন্ধকার রাতে আকাশের মধ্য অক্ষাংশে উরসা মেজর মন্ডল পর্যবেক্ষন করতে পারেন।এবং নবতারাটি দেখে নিতে পারেন।
আমি সাথে ম্যাপ দিয়ে দিলাম চেনার সুবিধার জন্য।
শুভেচ্ছা আপনাদের মহাকাশ আপনাকে আহবান করছে একটি বড় আতশবাজি দেখার জন্য,পর্যবেক্ষন করুন এবং আনন্দ লাভ করুন।

সামনে নতুন আপডেট পাবেন। বর্তমানে ছোট আকারের দূরবীনে একে দেখা যায়।

ছবি নাসা

(650)

Share Button
  

FavoriteLoadingপ্রিয় যুক্ত করুন

এলার্ম বিভাগঃ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

এলার্ম ট্যাগ সমূহঃ > >

Ads by Techalarm tAds

এলার্মেন্ট করুন

You must be Logged in to post comment.

© টেকএলার্মবিডি।সবচেয়ে বড় বাংলা টিউটোরিয়াল এবং ব্লগ | সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত

জেগে উঠো প্রযুক্তি ডাকছে হাতছানি দিয়ে!!!


Facebook Icon